তাজা খবর:
Home / breaking / ভাস্কর্যবিরোধীরা কোরআনবিরোধী, বললেন জাসদ সভাপতি ইনু
ভাস্কর্যবিরোধীরা কোরআনবিরোধী, বললেন জাসদ সভাপতি ইনু

ভাস্কর্যবিরোধীরা কোরআনবিরোধী, বললেন জাসদ সভাপতি ইনু

জাফর ইমাম মজুমদার রতন : জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু ও সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার বলেছেন, আলেম নামধারী বিএনপি-জামায়াত-জঙ্গিদের এসব বদলি খেলোয়ার ও রাজনৈতিক কাঠমোল্লারা কোরআন শরিফের বিরুদ্ধেও অবস্থান নিয়েছে। পবিত্র কোরাআনের সুরা কাফিরুনের রুকু এক-এর আয়াত ছয়-এ পরিষ্কারভাবে বলা হয়েছে ‘লাকুম দ্বীনুকুম ওয়ালিয়া দ্বীন’ বা ‘তোমাদের ধর্ম তোমাদের, আমার ধর্ম আমার’।’

শুক্রবার (৪ ডিসেম্বর) রাতে দলের দফতর সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে জাসদ নেতারা এসব কথা বলেন।

জাসদের এই দুই শীর্ষ নেতা বলেন, বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নিয়ে তথাকথিত বিতর্কের এ পর্যায়ে বৃহস্পতিবার (৩ ডিসেম্বর) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি-জামায়াত-জঙ্গির বদলি খেলোয়ার রাজনৈতিক কাঠমোল্লারা ‘মানুষ বা অন্য যে কোনও প্রাণীর ভাস্কর্য অথবা মূর্তি নির্মাণ, স্থাপন ও সংরক্ষণ পূজার উদ্দেশ্যে না হলেও সন্দেহাতীতভাবে নাজায়েজ, স্পষ্ট হারাম এবং কঠোরতম আজাবযোগ্য গুনাহ’ বলার মাধ্যমে পৃথিবীর দেশে দেশে মুসলিম-অমুসলিম নির্বিশেষে জাতিগুলোর ইতিহাস-ঐতিহ্য-সংস্কৃতি-জীবনবোধ-আইন-নীতি-সংবিধানের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে।

জাসদ নেতাদের দাবি, রাজনৈতিক কাঠমোল্লারা উপরন্তু অপরাপর ধর্মাবলম্বীদের পূজার উদ্দেশ্যে প্রতিমা স্থাপনকেও ‘স্পষ্ট শিরক’ বলার মাধ্যমে সাম্প্রদায়িক উসকানি দেওয়ার মতো এবং ধর্মগুলোর মধ্যে তুলনা করার মতো গর্হিত অপরাধ করেছে। এদের এ নিন্দনীয় ও গর্হিত অপরাধ বাংলাদেশের সংবিধানে ঘোষিত মৌলনীতিমালার পরিপন্থী।

জাসদের দুই নেতা বিবৃতিতে উল্লেখ করেন যে, ‘যারা বলছেন— মূর্তি ও ভাস্কর্য এক নয়, তারা ভুল বলছেন’ বলে এসব রাজনৈতিক কাঠমোল্লারা যে বক্তব্য দিয়েছে, তা অশিক্ষাপ্রসূত। প্রতিমা/মূর্তির সঙ্গে সম্পর্ক রয়েছে পারলৌকিকতার সম্পর্ক। আর ভাস্কর্যের সঙ্গে সম্পর্ক রয়েছে ইহজাগতিকতার। তার মানে এই নয় যে, প্রতিমা নাজায়েজ আর ভাস্কর্য জায়েজ। আমরা মনে করি, এখানে তুলনা গ্রাহ্য নয়। বাংলা ট্রিবিউন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Close