তাজা খবর:
Home / breaking / আপনার ব্যক্তিগত তথ্য ফাঁস করতে পারে ২০ হাজার অ্যাপ
আপনার ব্যক্তিগত তথ্য ফাঁস করতে পারে ২০ হাজার অ্যাপ

আপনার ব্যক্তিগত তথ্য ফাঁস করতে পারে ২০ হাজার অ্যাপ

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্কঃ-অ্যান্ড্রয়েড ফোনে অ্যাপ ডাউনলোডের জন্য গুগল প্লে স্টোরকে সবচেয়ে সুরক্ষিত মাধ্যম হিসেবে বিবেচনা হয়। অথচ সেই স্টোরের একাধিক অ্যাপে দেখা গেছে, বিপদের ‘আশঙ্কা’।ডিজিটাল সুরক্ষা সংস্থা অ্যাভাস্ট দাবি করেছে, গুগল প্লে স্টোরে ১৯ হাজার ৩০০টির বেশি এমন অ্যাপের সন্ধান রয়েছে যা ব্যবহারকারীদের ব্যক্তিগত তথ্য ফাঁস করতে দিতে পারে।

অ্যাভাস্টের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, গুগল প্লে স্টোরের ১৯ হাজার ৩০০টির বেশি অ্যাপের সুরক্ষার ক্ষেত্রে ফাঁকফোকর পাওয়া গেছে। যে অ্যাপগুলোর ফায়ারবেস ডেটাবেসে ত্রুটির কারণে গ্রাহকদের ব্যক্তিগত তথ্য ফাঁস হয়ে যেতে পারে। ফায়ারবেস এমন একটা টুল, যা অ্যান্ড্রয়েড ডেভেলপাররা ব্যবহারকারীদের তথ্য সংরক্ষণের জন্য ব্যবহার করে থাকেন।

অ্যাভাস্টের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, তাদের গবেষকরা এক লাখ ৮০ হাজার ৩০০ ফায়ারবেস নির্ভর অ্যাপ পরীক্ষা করে দেখেছেন। ১০ শতাংশেরও বেশি অ্যাপের (১৯ হাজার ৩০০) ক্ষেত্রে দেখা গেছে, সেগুলোর ফায়ারবেস ‘খোলা’ আছে। অ্যাপ ডেভেলপারদের মিস কনফিগারেশনের কারণেই সেই ফাঁক রয়েছে। যা ব্যবহারকারীদের তথ্য ফাঁস করে দিতে পারে। অনায়াসে চুরি হয়ে যেতে পারে ব্যবহারকারীদের একান্ত ব্যক্তিগত তথ্য।

অ্যাভাস্টের ম্যালওয়ার গবেষক ভ্লাদিমির মার্তয়ানোভ জানিয়েছেন, প্রতিটি ‘খোলা’ ফায়ারবেসের ক্ষেত্রেই তথ্য চুরির ঘটনা যেকোনো মুহূর্তে ঘটতে পারে। সেই তথ্যে কোনোভাবে হাত পড়ে গেলে ব্যবহারকারীদের ব্যবসা, আইন সংক্রান্ত ক্ষেত্রে বিপদ তৈরি হবে।

কী ধরনের তথ্য ফাঁস হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে?

অ্যাভাস্ট জানিয়েছে, ব্যবহারকারীর নাম, ঠিকানা, জন্মতারিখ, অবস্থান সংক্রান্ত তথ্য ফাঁস হয়ে যেতে পারে। এমনকি সুরক্ষাজনিত বিষয়ে আরও ঘাটতি থাকলে কয়েকটি অ্যাপের ক্ষেত্রে বেহাত হয়ে যেতে পারে ব্যবহারকারীদের পাসওয়ার্ড। বিষয়টি নিয়ে গুগলকে জানানো হয়েছে, যাতে অ্যান্ড্রয়েড ডেভেলপাররা অবিলম্বে সেই ফাঁকফোকর ঠিক করে নিতে পারেন।

কোন কোন অ্যাপ নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে?

লাইফস্টাইল, গেমিং, মেল, খাবার ডেলিভারি, ওয়ার্ক আউটসহ বিভিন্ন অ্যাপের মাধ্যমে এসব বিপদ হতে পারে। ইউরোপ, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া, লাতিন আমেরিকাসহ বিশ্বে প্রায় সব স্থানেই এ সমস্যা ধরা পড়েছে।

ব্যবহারকারীদের কী করা উচিত?

>> যাচাই না করে গুগল প্লে স্টোর থেকে কোনো অ্যাপ ডাউনলোড না করা।

>> যেকোনো অ্যাপ ডাউনলোডের আগে ভালোভাবে বিবরণ পড়তে হবে। কম সুরক্ষিত অ্যাপগুলোর বিবরণ অগোছালোভাবে লেখা থাকবে।

>> যে অ্যাপগুলো অল্প টাকা বা বিনামূল্যে কিছু দিতে চায়, তাতে ভরসা রাখা যাবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Close