তাজা খবর:
Home / breaking / অ্যামেচার রেডিও নিয়ে বন্যার্তদের সহায়তা দিতে চায় এআরএসবি
অ্যামেচার রেডিও নিয়ে বন্যার্তদের সহায়তা দিতে চায় এআরএসবি

অ্যামেচার রেডিও নিয়ে বন্যার্তদের সহায়তা দিতে চায় এআরএসবি

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক:

সিলেটের বন্যার্তদের ত্রাণ সহায়তা ও উদ্ধার কাজে অংশ নিতে উদ্যোগ নিয়েছে অ্যামেচার রেডিও সোসাইটি অব বাংলাদেশ (এআরএসবি)।

এআরএসবি মূলত দেশের অ্যামেচার রেডিও (হ্যাম রেডিও) অপারেটরদের সংগঠন। সংগঠনটির সদস্যরা বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) লাইসেন্সপ্রাপ্ত অ্যামেচার রেডিও অপারেটর। যাদের প্রত্যেকের নিজস্ব বেতার যন্ত্র রয়েছে। এক একটি বেতার যন্ত্র, এক একটি স্টেশন। দেশে এখন পাঁচশতাধিক অপারেটর রয়েছে।

দুর্যোগে যখন সবকিছু ধ্বংস হয়ে যায়, যোগাযোগব্যবস্থা বলতে আর কিছুই থাকে না, ঠিক তখনই এগিয়ে আসেন অ্যামেচার রেডিও অপারেটররা। অ্যামেচার রেডিও বা শৌখিন বেতার যোগাযোগব্যবস্থায় একজন ব্যবহারকারী নিজেই একটি পূর্ণাঙ্গ বেতার গ্রাহক ও প্রেরকযন্ত্রের অধিকারী। এর মাধ্যমে একটি নির্দিষ্ট বেতার তরঙ্গ ব্যবহার করে নিজের শহর, দেশ, এমনকি পৃথিবীর যেকোনো দেশের ওই ধরনের বেতারযন্ত্র ব্যবহারকারীর সঙ্গে তথ্য বিনিময় করতে পারেন।

এআরএসবির সাধারণ সম্পাদক অনুপ কুমার ভৌমিক জানান, সিলেট বিভাগ বন্যা দুর্গত। সেখানে দুর্যোগ চলছে। এই দুর্যোগের উদ্ধারকাছে অংশ নেওয়া এবং দুর্গতদের ত্রাণ সহায়তা দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে এআরএসবি। দেশের অ্যামেচার রেডিও অপারেটর, এআরএসবির সদস্য, সহযোগী সদস্য এবং স্বেচ্ছাসেবীদের নিয়ে একটি ইমার্জেন্সি কমিউনিকেশন রেসপন্স টিম গঠন করা হয়েছে। যারা শিগগিরই সিলেটের দুর্গত এলাকায় গিয়ে ত্রাণ সহায়তা দেবে।

সিলেটে ত্রাণ সহায়তা দেওয়ার জন্য এআরএসবি সংগঠনটির সদস্য, অন্যান্য অ্যামেচার রেডিও অপাটের, স্বেচ্ছাসেবী এবং সমাজের বিত্তবানদের কাছে অর্থসহায়তা চায়। সবার কাছ থেকে নেওয়া এই অর্থ সহায়তা দিয়ে সিলেটে যথাসম্ভব ত্রাণ কার্য পরিচালনা করা হবে।

অনুপ কুমার ভৌমিক জানান, বন্যার কারণ সিলেটের অনেক এলাকা বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন। মোবাইল ফোনের নেটওয়ার্কও নেই। ফলে বন্যার্তদের উদ্ধার ও ত্রাণ সহায়তায় কাজ করতে চায় এআরএসবি। সংগঠনটির সদস্য ও অন্যান্য অ্যামেচার রেডিও অপারেটরদের কাছে বেতার যন্ত্র রয়েছে। এসব বেতার যন্ত্র সচল রাখার জন্য বিদ্যুতের বিকল্প হিসেবে বিভিন্ন ধরনের নবায়নযোগ্য জ্বালানি (ব্যাটারি, সোলার, উইন্ড টারবাইন, ডায়নামো, হ্যান্ড ক্র্যাংক) ব্যবহার করেন রেডিও অপারেটরগণ। তাই যেখানে বিদ্যুৎ নেই সেখানেও একটি রেডিও স্টেশন স্থাপন ও পরিচালনা করে বেতার যোগাযোগ সচল রাখতে সক্ষম রেডিও অপারেটরগণ।

বন্যার কারণে সিলেটে বিদ্যুৎ সরবরাহ তথা টেলিযোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেলে বাংলাদেশের অ্যামেচার রেডিও অপারেটরগণ তাদের রেডিও স্টেশনের মাধ্যমে বেতার যোগাযোগের অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে পারে বলেও জানায় এআরএসবি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Close