তাজা খবর:
Home / আমাদের ধর্ম / নামাজের সময় দাঁতের ফাঁকে থাকা খাবার পেটে গেলে নামাজ হবে?
নামাজের সময় দাঁতের ফাঁকে থাকা খাবার পেটে গেলে নামাজ হবে?

নামাজের সময় দাঁতের ফাঁকে থাকা খাবার পেটে গেলে নামাজ হবে?

ধর্ম ডেস্ক:

নামাজের মাধ্যমে কোরআন-হাদিসে বর্ণিত ফজিলত ও পরকালীন পুরস্কার পেতে নামাজে মনোযোগী হওয়া আবশ্যক। অমনোযোগী ব্যক্তিকে নামাজ নিজেই তিরস্কার করে। নামাজে মনোযোগহীনতার রোগটি নিন্দনীয়। আল্লাহর রাসুল (সা.) এটিকে ‘শয়তানের ছিনতাই’ বলেছেন। 

মনোযোগ ও একাগ্রতা নামাজের প্রাণ। রাসুল (সা.) বলেন, ‘এমনভাবে আল্লাহর ইবাদত করো, যেন তাকে তুমি দেখতে পাচ্ছো। আর যদি দেখতে না পাও, তবে তিনি যেন তোমাকে দেখতে পাচ্ছেন।’ (বুখারি, হাদিস : ৫০; মুসলিম, হাদিস : ৮)

রাসুল (সা.) বলেন, ‘যে সুন্দরভাবে অজু করে, অতঃপর মন ও শরীর একত্র করে (একাগ্রতার সঙ্গে) দুই রাকাত নামাজ আদায় করে, (অন্য বর্ণনায় এসেছে, যেই নামাজে ওয়াসওয়াসা স্থান পায় না) তার জন্য জান্নাত ওয়াজিব হয়ে যায়।’ -(নাসায়ি, হাদিস : ১৫১; বুখারি, হাদিস : ১৯৩৪)

নামাজে অনেক সময় অবচেতন মনে অনাকাঙ্খিত কিছু বিষয় ঘটে যায়। যেমন, হঠাৎ করে কখনও কখনও দাঁতের ফাঁকে আটকে থাকা খাবার পেটের ভেতরে চলে যায়। ফেকাহবিদ আলেমদের মতে, নামাজে পানাহার করলে নামাজ নষ্ট হয়ে যায়। -(ফিকহুস সুন্নাহ্‌ ১/২৪০, ফিকহুস সুন্নাহ্‌ উর্দু ১৩০ পৃ:)

অতএব, নামাজের সময় দাঁতের ফাঁকে আটকে থাকা খাবার পেটে চলে গেলে নামাজ আদায় সহি হবে নাকি নামাজ নষ্ট হয়ে যাবে- এনিয়ে মনে সন্দেহ জাগে।

এ বিষয়ের সমাধান দিতে গিয়ে ইসলামী আইন ও ফেকাহশাস্ত্রবিদেরা বলেন, নামাজের সময় মুখে বা দাঁতের ফাঁকে আটকে থাকা খাবারের পরিমাণ যদি বুট (ছোলা) সমপরিমাণ হয়,তাহলে তা গিলে ফেলার দ্বারা নামাজ নষ্ট হয়ে যাবে। এমন হলে এই নামাজ আবার আদায় করতে হবে।

আর যদি দাঁতের ফাঁকে আটকে থাকা খাবারের পরিমাণ একটি বুট (ছোলা) সমপরিমাণ না হয়, বরং একেবারেই সামান্য হয়, তাহলে নামাজ নষ্ট হবে না।

ফেকাহবিদ আলেমদের মতে, শরীয়তের বিধান হলো, নামাজি ব্যক্তি যদি নামজের মধ্যে সামান্য ও একেবারে ছোট বস্তুও বাহির থেকে মুখে নিয়ে  গিলে ফেলে, তাহলে নামাজ নষ্ট হয়ে যাবে।

আলেমরা বলেন, নামাজের ভেতর যদি কেউ আকাশের দিয়ে চেহারা ফেরায় এবং এ সময় বৃষ্টি বা অন্য কোনো পানি তার মুখের ভিতর চলে যায় এবং সে তা গিলে ফেলে তাহলে তা এক ফোটা পরিমাণ হলেও নামাজ নষ্ট হয়ে যাবে।

তবে নামাজ শুরুর আগে থেকে মুখে বা দাঁতের ফাঁকে আটকে থাকা খাবার যদি একটি বুট (ছোলা) পরিমাণ হয় এবং তা গিলে ফেলে তাহলে এর কারণে নামাজ নষ্ট হবে।

আর যদি মুখে বা দাঁতের ফাঁকে আটকে থাকা খাবার বুটের থেকে পরিমাণে ছোট হয় এবং তা চিবানো ছাড়াই এমনিতেই গলার ভিতর চলে যায়, তাহলে এভাবে গিলে ফেলার কারণে নামাজ নষ্ট হবে না।-(কিতাবুন নাওয়াজেল ৪/১০০, মারাকিল ফালাহ ১/১২১, নূরুল ঈজাহ ১/৬৮)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Close